শফিউল একটা জ্বীন : তামিম ইকবাল

জাতীয় দলের সবচেয়ে রুগ্ন দেহের খেলোয়াড় কে? এই প্রশ্নটি শুনলেই ভেসে উঠে জাতীয় দলের পেসার শফিউল ইসলামের চেহারা।

রুগ্ন দেহের অধিকারী এই পেসারকে জ্বীন বলে আখ্যা দিয়েছেন ওয়ানডে দলপতি তামিম ইকবাল। খাওয়া দাওয়া প্রচুর করলেও শরীরের কোনো উন্নতি হয় না বলেই এমনটা দাবী করছেন তামিম।

সম্প্রতি দেশের শীর্ষস্থানীয় একটি অনলাইন সংবাদমাধ্যমকে দেয়া এক ভিডিও সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা জানান।

তামিম বলেন, ‘ও (শফিউল) একটা জ্বীন। আমার কাছে ওকে জ্বীন মনে হয়। ওকে যদি আপনি তিন বেলা বিরিয়ানি খাওয়ান ও টানা একবছর তা খেতে পারবে। কিন্তু তাতেও ওর শরীরে কোনো পরিবর্তন আসবে না।

ওর যা মনে ইচ্ছা হয় ও তাই খায়। কোক খায়, বিরিয়ানি খায়, সব খায়। আমাদের (ক্রিকেটারদের) সবার থেকে কোক দূরে রাখা হয়। আর ওকে কোক দেয়া হয়। কিন্তু তাঁর শরীরে কোনো পরিবর্তন আসে না। আমি বুঝি না এটা কিভাবে হয়। আমি যদি এমনটা পারতাম।’

এদিকে ভোজনরসিক হিসেবে জাতীয় দলে বেশ সুখ্যতি রয়েছে তামিমের। সেই সুবাদে ধরে নেয়া যায় দলের বাকি ক্রিকেটারদের চেয়ে কিছুটা হলেও খাবার দাবার বেশি খান তিনি। কিন্তু বিষয়টি তিনি একেবারের মানতে নারাজ। তাঁর দাবী সতীর্থদের চেয়ে অনেক কম খান তিনি।

তামিম বলেন, ‘দেখেন খাওয়া দাওয়া অনেকেই কমবেশি পছন্দ করে।আমার কাছে মনে হয় সবচেয়ে কম খাই আমি। খাওয়ার আগ্রহ আমার অনেক, কিন্তু আমি খাই সবচেয়ে কম। কারণ ওরা যেই পরিমাণে খায়, আমি যদি ওদের মতো খাই তাহলে আমার আর ক্রিকেট খেলা লাগবে না।’

‘ধরেন রুবেল, মিরাজ। মিরাজকে দেখলে কিন্তু মনে হয় না মিরাজ খায়। মিরাজ মাশাআল্লাহ কিন্তু ভালোই খেতে পারে। সাব্বির অনেক রুচি নিয়ে খায়।

তাঁর খেলার ব্যাগে সবসময় আমি আদা দেখি। বিদেশেও ও এই আদা নিয়ে যায়। চা বানালে একটা আদা ওর ওপর ছেড়ে দেয়। মুস্তাফিজও কমবেশি ভালোই খায়।’
সূত্রঃ-ক্রিকফ্রেঞ্জি