রোডসকে বাদ দেয়ায় যা বললেন সৌরভ গাঙ্গুলী

বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নিচ তলার বারান্দায় ছিল সাংবাদিকদের জটলা। একটাই অপেক্ষা,

কখন আসবেন বাংলাদেশের বিদায়ী কোচ স্টিভ রোডস! কালো গাড়িতে করে বিসিবিতে পা রাখার পর সাংবাদিক কিংবা পরিচিত মুখদের সঙ্গে কথা বললেন না তিনি।সোজা উপরে উঠে গেছেন।

সেখানে বিসিবির শীর্ষ কয়েকজন কর্মকর্তার সঙ্গে দেখা করেছেন ইংলিশ এই কোচ। উদ্দেশ্য, দেনা-পাওনার হিসেব চুকিয়ে নেয়া। সব শেষে এক ফাঁকে অনেক স্মৃতি বিজরিত বাংলাদেশ দলের ড্রেসিং রুমটাও ঘুরে এসেছেন তিনি।

মাশরাফি বিন মুর্তজাদের সদ্য সাবেক এই গুরুর চাহনিতে বোঝা গেছে ব্রিটিশ হলেও আবেগ তাঁকে তাড়া করে।বিসিবি ছাড়ার সময় আকাশী টি-শার্ট পরা রোডস তাঁর মুখে হাসি রাখলেও সেটার আড়ালে হয়তো লুকিয়ে ছিল বেদনার বিশাল এক নীল আকাশ।

অপেক্ষারত সাংবাদিকদের সময় দেননি তিনি। কথা বলতে এগিয়ে গেলেও তাঁর সাড়া মেলেনি। একবারের জন্যও তাকিয়ে দেখেননি কারোর দিকে।সাংবাদিকদের এড়িয়ে গেলেও বাংলাদেশ দলকে শুভকামনা জানাতে ভুলে যাননি রোডস।

বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী জানিয়েছেন কী কথা হয়েছে তাঁর সঙ্গে।বিসিবির প্রধান নির্বাহী বলেন, ‘রোডস বলেছেন, সবসময়ই বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য যেহেতু কাজ করেছেন এবং সরাসরি জাতীয় দলের সাথে কাজ করেছেন,

আমাদের ভালোই দেখতে চান এবং শুভকামনা তো সবসময়ই থাকবে একজন হেড কোচ হিসেবে।’বুধবার বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন অবশ্য রোডসের সঙ্গে ‘মিচুয়্যাল সেপারেশনের’ মাঝে একটু যদি-কিন্তু রেখে দিয়েছিলেন।

তিনি বলেছিলেন রোডসকে বাদ দেয়া হয়নি। তাঁর সঙ্গে সব কিছু নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। বিসিবি রোডসের লাস্ট কলের অপেক্ষায় আছে। সেই সিদ্ধান্ত জানাতেই শেষবারের মতো বিসিবিতে এসেছিলেন তিনি।

বিসিবি সভাপতি বলেছিলেন, ‘রোডসকে বাদ দেয়া হয়নি। তার সাথে অনেক কিছু নিয়ে কথা বলছি। আমরা আমাদের চিন্তা-ভাবনা তাকে জানিয়েছি। সে আমাদের ভাবনার সঙ্গে একমত হয়নি।

তাই আমরা ধরে নিয়েছি রোডস আর থাকবেন না। এখন লাস্ট কল (সিদ্ধান্ত) রোডসের। আমি অপেক্ষায় আছি, হয়তো আজকালের মধ্যেই তার লাস্ট কলটা জানা যাবে। হয়তো আজ কিংবা কালও সে তার লাস্ট কল জানিয়ে দিতে পারেন।’

বৃহস্পতিবার নিজের ‘লাস্ট কল’ জানিয়ে দিয়েছেন রোডস। সব সম্পর্ক ছিন্ন করে আজই দেশ ছাড়বেন এই ইংলিশ কোচ। রাতেই ইংল্যান্ডের বিমান ধরবেন ইতোমধ্যেই সাবেক হয়ে ওঠা এই ইংলিশ ম্যান।

ফলে আবারও নতুন কোচ খোঁজার মিশনে নামতে হচ্ছে বিসিবিকে।বাংলাদেশ দলের এই সিদ্ধান্তে অবাক হয়েছেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী। সব সময়ই বাংলাদেশের ক্রিকেটের উপর নজর রাখেন এবং মূল্যবান পরামর্শ দেন তিনি।

বাংলাদেশের এক সাংবাদিককে বলেই দিলেন তোমাদের কি হলো বলো তো, কোচকে বরখাস্ত করে দিলে! বাংলাদেশ ভালো খেলেছে তো, কোচ কেন বরখাস্ত!উত্তরে ওই সাংবাদিক বলতে শুরু করেন,

‘ব্যর্থ বিশ্বকাপ অভিযানের বলি…’, উত্তরটা দিতে না দিতেই সৌরভ বলে উঠেন, ব্যর্থ বলছো কী! তোমরা ভালো করেছো তো। আমি কেন, এখানে সবাই প্রশংসা করছে। এভাবে কোচ বাদ দেওয়া মোটেও ভালো সংস্কৃতি নয়।