ব্যারিস্টার সুমনের বি’রুদ্ধে মা’মলার প্রস্তুতি

এবার সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনের বি’রুদ্ধে পৃথক আইনে মা’মলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন আরেক আইনজীবী। হিন্দু আইনজীবী পরিষদের সভাপতি এ আইনজীবীর নাম সুমন কুমা’র রায়।

ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে নিজেই বিষয়টি জানিয়েছেন। পরে মা’মলার প্রস্তুতির বিষয়টি তিনি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেন বলেন, পৃথক দুটি ধারায় এ মা’মলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

সুমন কুমা’র রায় বলেন, ধ’র্মীয় অনুভূতিতে আ’ঘাতের অ’ভিযোগে একটি এবং মানহানির অ’ভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দুটি মা’মলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনের বি’রুদ্ধে দুই ধরনের অ’ভিযোগ আনার সুযোগ আছে। একটি ২৯৫ (ক) ধারায়। অ’পরটি ফেসবুক লাইভে মানহানি করায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের সংশোধিত ধারায় অ’ভিযোগ আনা হবে।

এ বিষয়ে ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন জাগো নিউজকে বলেন, ‘মা’মলা করা একটি সাংবিধানিক অধিকার। যে কেউ কারো বি’রুদ্ধে মা’মলা করতে পারে। এটাই বাংলাদেশের নিয়ম হওয়া উচিত।’

এর আগে মা’র্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশের বি’রুদ্ধে মিথ্যা অ’ভিযোগ করে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করায় বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক

প্রিয়া সাহার বি’রুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অ’ভিযোগে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও আন্তর্জাতিক অ’প’রাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনের করা মা’মলা খারিজ করে দিয়েছেন আ’দালত।

রোববার ঢাকা মহানগর হাকিম জিয়াউর রহমানের আ’দালতে রাষ্ট্রদ্রোহের মা’মলা করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও আন্তর্জাতিক অ’প’রাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

পেনাল কোডের ১২৩ (এ), ১২৪ (এ) ও ৫০০ ধারায় মা’মলা’টি আমলে নেয়ার জন্য ব্যারিস্টার সুমন আ’দালতে আবেদন করেন। আ’দালত বাদীর জবানব’ন্দি গ্রহণ করে পরে খারিজের আদেশ দেন।

এর আগে গত শুক্রবার (১৯ জুলাই) রাতে ফেসবুক লাইভে এসে মা’মলা করার ঘোষণা দিয়েছিলেন ব্যারিস্টার সুমন। সেদিন তিনি বলেন, ‘আমি তার বি’রুদ্ধে অবশ্যই মা’মলা করব, আপনারা আমা’র পাশে থাকবেন।