যে কারণে নোবেলকে চাবুক মা’রতে চাইলেন কলকাতার গায়িকা ইমন চক্রবর্তী

জি বাংলা টেলিভিশনের সংগীত রিয়েলিটি শো ‘সা রে গা মা পা ২০১৯’ এ অংশ নিয়ে পুরো শো জুড়েই আলোচনায় ছিলেন বাংলাদেশের ছেলে নোবেল। বিচারক ও দর্শকদের প্রশংসা পেয়েও ফাইনালে বিজয়ের মুকুট পাননি তিনি।

এই সিজনে নোবেল প্রীতমের সঙ্গে যৌথভাবে দ্বিতয় রানার্স আপ হয়েছেন।কেন নোবেল তৃতীয় হলেন এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া সরগরম। তবে এর মধ্যেই আবারও তিনি জড়িয়েছেন নতুন বিতর্কে।

নোবেল
এবার তার একটি লাইভ সাক্ষাৎকারে জাতীয় সঙ্গীত নিয়ে মন্তব্য করে নতুন বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন নোবেল। সেই সাক্ষাৎকারে নোবেল বলেছেন,‘রবীন্দ্রনাথের লেখা জাতীয় সঙ্গীত

‘আমা’র সোনার বাংলা’ যতটা না দেশকে এক্সপ্লেইন করে তারচেয়ে কয়েক হাজার গুণে এক্সপ্লেইন করে প্রিন্স মাহমুদ স্যারের লেখা ‘বাংলাদেশ’ গানটি।

নোবেলের এমন মন্তব্যে উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া। তাকে এমন মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইতে বলছেন অনেকেই। অনেকেই দেশের জাতীয় সংগীতকে অ’পমান করার জন্য তার বিচারও দাবি করেছেন। বিতর্কের এই আ’গুনে যেনো ঘি ঢাললেন কলতার জনপ্রিয় গায়িকা ইমন চক্রবর্তী।

নোবেলের এই সাক্ষাৎকাটি দেখার পরই তাকে চাবুক মা’রতে চেয়েছেন ইমন চক্রবর্তী। ভারতীয় এক গণমাধ্যমে ইমন বলেন, ‘আম’রা এখনও ভুল করলে বড়রা শুধরে দেন।

শাসন করেন। নোবেল আমা’র ছোট ভাইয়ের মতো। সদ্য ক্যারিয়ার শুরু করেছে। তাই শুরুতেই এরকম বিরূপ মন্তব্য ওর করা উচিত হয়নি। দিদি হিসেবে,শিল্পী হিসেবে এবং সর্বোপরি একজন বাঙালি হিসেবে আমি একথা বলেছি। নোবেল নিজেকে দ্রুত শুধরে নিতে পারলে ওর জন্যই ভালো’।

ইমন আরও বলেন, ‘শুধুই যে নোবেল বাংলাদেশকে অ’পমান করেছেন, জাতীয় সংগীতের অবমাননা করেছেন এমন নয়, বাঙালির সাংস্কৃতিক আত্ম্যাভিমানে আ’ঘাত করেছেন। একজন শিল্পী হিসেবে আমি এর প্রতিবাদ জানালাম।’