বিপিএলের পেশাদারিত্ব নিয়ে রশিদ খানের প্রশ্ন!

শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে নাফিসা কামাল বলেন, ‘রশিদ খান আমার চুক্তিবদ্ধ খেলোয়াড়। কিন্তু দুই বছর ধরে এখন পর্যন্ত একবারও তাকে ফেরত পাইনি।

তার কথা হচ্ছে- তোমার টুর্নামেন্টের কোনো বিশ্বাসযোগ্যতাই নেই, আমি কেন অন্য দুইটা চুক্তি বাদ দিয়ে তোমার বিপিএলে আসব!

আমি এখানে যে যুক্ত থাকব, তোমাদের এখানে এখনো সেভাবে পেশাদারিত্ব আসেনি।’শুধু তাই নয়। ফ্র্যাঞ্চাইজিদের ছাড়াই বিপিএল আয়োজিত হবে-কাউন্সিল ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) এমন সিদ্ধান্তে যেসব বিদেশি ক্রিকেটার এবার দলভুক্ত হওয়ার সম্ভাবনা ছিল; তারাও পড়েছেন বিপাকে- এমন দাবি নাফিসার।

‘শহীদ আফ্রিদি তাবলীগে আছে, সেও যোগাযোগ করছে ওখান থেকে। সাথে ৬-৭ জন শীর্ষ এজেন্ট। ওরা ব্যাপারটা ধরতেই পারছিল না। জিগ্যেস করছিল- এটা কি মিথ্যা কোনো খবর?

ব্যাপারটি তারা মেনে নিতে পারছিল না। বিদেশি খেলোয়াড়রা বলছে- আমরা অন্য লিগ বাতিল করে তোমাদের সাথে চুক্তি করেছি, এখন অন্য লিগে ফেরত যাব কী করে!

তারা সামনে আর বিপিএলে আসবে না। এটার কোনো বিশ্বাসযোগ্যতা নেই!রিটেইনড খেলোয়াড় মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও নতুন চুক্তিবদ্ধ আইকন ছাড়াও মিচেল ম্যাকলেনাঘান,

মুজিব উর রহমান, হাশিম আমলার মত ক্রিকেটারদের সাথে কথা চলছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের। কারো সাথে কথা প্রায় পাকাপাকিই ছিল। তাদের নিয়েও এবার বিপাকে পড়েছে দলটি।নাফিসা বলেন,

‘আমলার সাথে আমি এখন আর কথাই বলতে পারছি না। কী বলব এমন একটা স্ট্যাটাসের খেলোয়াড়কে! ওদের গাইডলাইন মেনেই আমরা আগাচ্ছিলাম।

বলেছিল তিনজন বিদেশি খেলোয়াড় নেওয়া যাবে। লোকাল ক্রিকেটার হিসেবে মুশফিকের সাথে চুক্তি করেছি, সাইফউদ্দিন রিটেনশনে ছিল- এভাবেই আগাচ্ছিলাম।