টাইগারদের আগুন ঝড়া বোলিং এ দিনের শুরতেই লন্ডভন্ড ওয়েস্ট ইন্ডিজ

বাংলাদেশ – ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার শেষ টেস্টে ৩য় দিন শেষে ক্যারিয়ানরা এগিয়ে ছিল ১৫৪ রানে।২য় ইনিংসের ৩য় দিন শেষে তাদের সংগ্রহ ছিল ৩ উইকেটে ৪১রান।

এইদিন সাদা পোশাকে বাংলাদেশের হয়ে সব থেকে কম সময়ে ১০০ উইকেট শিকার করার অন্যন্য কৃর্তি গড়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।এর আগে ১১৩ রানের লিড নিয়ে ২য় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

আর শুরু থেকেই এই ইনিংসে বাংলাদেশ ছিল আক্রমনাত্মক। যার ফল হিসেবে বাংলাদেশ ইনিংসের শুরুতেই ১১রানের মাথায় ক্যারাবিয়ান দলপতি ক্রেইগ ব্রাথওয়েটকে প্যাভিলিয়নের পথ ধরান নাঈম হাসান।

উইকেটের পিছনে লিটনের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হলেও প্রথমে আউট দেননি আম্পায়ার, পরে রিভিউ নিয়ে উইকেটটি আদায় করে বাংলাদেশ।ওয়েস্ট ইন্ডিজের ২য় উইকেট তুলে নেয় মেহেদী মিরাজ।

আর এই উইকেট তুলে নেওয়ার মাধ্যমে টেস্ট ক্রিকেটে ১০০তম উইকেটের ক্লাবে প্রবেশ করেন এই অলরাউন্ডার।চতুর্থ বাংলাদেশি হিসেবে এই ক্লাবে নাম লেখান মিরাজ।

বাংলাদেশিদের মধ্যে তার এই অর্জন সব থেকে কম সময়ের মধ্যে। ২০রানে পতন হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের ২ উইকেটের।এরপরেই ক্যারিবিয়ান শিবিরে আঘাত হানে তাইজুল ইসলাম।

তার বলে বোল্ড হয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন জন ক্যাম্বাল।ওয়েস্ট ইন্ডিজ তখন ৩৯ রানে ৩ উইকেটের দল।তৃতীয় দিনশেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৪১ রান। উইকেট হারিয়েছে ৩টি।

সফরকারীরা এগিয়ে আছে ১৫৪ রানে।ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ইনিংসে সংগ্রহ করেছিল ৪০৯ রান। জবাবে বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে সংগ্রহ করে ২৯৬ রান।

বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭১ রানের ইনিংস খেলেছিলেন লিটন দাস। এছাড়া মেহেদী হাসান মিরাজ ৫৭ ও মুশফিকুর রহিম ৫৪ রান করেন। তামিম ইকবালের ব্যাট থেকে আসে ৪৪ রান।

অধিনায়ক মুমিনুলের ব্যাট থেকে এসেছিল ২১ রান। বাকি ব্যাটসম্যানরা বলার মতো রান করতে পারেননি।ওয়েস্ট ইন্ডিজের ডানহাতি স্পিনার রাহকীম কর্নওয়াল নিয়েছিলেন ৫টি উইকেট।

আজকে চতুর্থ দিনের ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পরে উইন্ডিজ দল।আবু জাহেদ রাহীর স্পিড জাদুতে দিনের শুরুতেই আউট হয়ে ফিরেন জমেল ওয়ারিকেন।এই প্রতিবেদন লিখার সময় উইন্ডিজের সর্বশেষ স্কোর ৪ উইকেটে ৬১ রান।