দলে ফিরছেন আশরাফুল

সম্প্রতি সমাপ্ত হওয়া প্রেসিডেন্টস কাপে জায়গা হয়নি এক সময়ে জাতীয় দলের নির্ভরতার প্রতীক মোহাম্মদ আশরাফুলের। প্রেসিডেন্টস কাপে জায়গা না পেলেও আসন্ন বঙ্গবন্ধু টি-২০ টুর্নামেন্টে জায়গা পেতে মরিয়া হয়ে আছেন এই ব্যাটসম্যান।

বর্তমানে ঘরোয়া ক্রিকেটের কোনো আসর চলমান না থাকার কারনে ক্রিকেটারদের প্রমাণ করার জায়গা আপাতত আসন্ন টি-২০ টুর্নামেন্টই। এই টুর্নামেন্টকে ঘিরে নিজের জোর প্রস্তুতির কথা জানিয়েছেন আশরাফুল।

একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলকে তিনি বলেন, ‘’লাস্ট আড়াই মাস ধরেই প্রিপারেশন নিচ্ছি, নিয়মিত প্র্যাকটিস করছি। এর মধ্যে অনেকগুলো প্র্যাকটিস ম্যাচও খেলেছি।

ওয়ানডে, টি-২০ ও তিন দিনের ম্যাচও খেলেছি দুইটা। আমি মেন্টালি ও ফিজিক্যালি শতভাগ প্রস্তুত যেকোনো খেলার জন্যই। আশা করছি যদি এই লিগে একটা দলে সুযোগ পাই তাহলে পারফর্ম করার সুযোগ পাব।‘’

সদ্য সমাপ্ত প্রেসিডেন্টস কাপে দল ছিল মাত্র ৩টি। তবে টি-২০ টুর্নামেন্টে দলের সংখ্যা বাড়ছে। ৫ দলকে নিয়ে আয়োজন করা এই টুর্নামেন্টে ক্রিকেটারের সংখ্যাটা তাই ৭৫ থেকে ৮০ জনের।

ক্রিকেটারদের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় জাতীয় দল কিংবা হাই পারফরম্যান্স দলের বাইরে থাকা বহু ক্রিকেটার সুযোগ পাবেন এই টুর্নামেন্টে। ফলে হয়ত এই টুর্নামেন্টে দেখা যেতে আশরাফুলকে।

অন্যদিকে ক্রিকেটারদের ফিটনেস পরীক্ষা উত্রে তবেই সুযোগ পেতে হবে দলে। দীর্ঘদিন ধরে ক্রিকেটের বাইরে থাকা সাকিব আল হাসানের ক্ষেত্রেও তাই একই রকম হিসেব করা হবে।

ক্রিকেটারদের ফিটনেসে কোনো প্রকার ছাড় দেয়া হবে না জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু।প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘’যেহেতু অনেক দিন পর আমরা লোকাল প্লেয়ারদের নিয়ে একটা টি-২০ ফরম্যাটের টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে যাচ্ছি।

প্লেয়ারদের একটা মেসেজ দিয়ে দিচ্ছি যে, স্ট্যান্ডার্ড অব ফিটনেস যদি একটা প্লেয়ারের না থাকে তাহলে আমরা ড্রাফটে তাকে এলাউ করব না।‘’

প্রসঙ্গত, আগামী ১৫ নভেম্বর থেকে শুরু হতে যাচ্ছে ‘বঙ্গবন্ধু টি-২০ কাপ’ টুর্নামেন্ট। পাঁচ দলের এই টুর্নামেন্টে প্লেয়ারদের ড্রাফট এখনও চূড়ান্ত করেনি বিসিবি।