দ্বিতীয় টেস্টে জয়ে ফিরতে যে ১১ সদস্যের একাদশ নিয়ে মাঠে নামছে বাংলাদেশ

সেন্ট লুসিয়ার ড্যারেন স্যামি স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২৪ জুন থেকে শুরু হবে বাংলাদেশ দলের দ্বিতীয় টেস্ট।

অ্যান্টিগায় প্রথম টেস্টে বাংলাদেশকে ৭ উইকেটে হারিয়েছিলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বাংলাদেশের একাদশে তাই কিছুটা পরিবর্তন আসার আভাস দিয়েছেন দলের অধিনায়ক সাকিব ও কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে বাংলাদেশ দলে খেলাটা একরকম নিশ্চিতই হয়ে আছে আট বছর পর টেস্ট দলে ফেরা এনামুলের।

টিম ম্যানেজমেন্টের চিন্তায় খুব বেশি ওলট–পালট না ঘটে গেলে সেন্ট লুসিয়া টেস্টের একাদশে থাকছেন তিনি। কিন্তু প্রশ্ন হলো, তাঁকে জায়গা ছাড়তে প্রথম টেস্টের দল থেকে বাদ যাবেন কে?

সম্ভাব্যদের তালিকায় দুটি নাম এবং সেগুলো কাদের নাম, অনুমান করা কষ্টের কিছু নয়। গত ছয় ইনিংসে একবার মাত্র (এবারের অ্যান্টিগা টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে) দুই অঙ্কের দেখা পাওয়া টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন এবং গত ৯ ইনিংসে একবারও দুই অঙ্কের দেখা না পাওয়া সদ্য সাবেক অধিনায়ক মুমিনুল হক।

অবশ্য মুমিনুল-নাজমুল দুইজনকেই বাদ দিয়ে এনামুলের সঙ্গে আর একজনকে যে মাঠে নামানো যাবে, সেই উপায়ও নেই। সর্বশেষ খবর অনুযায়ী ইয়াসির আলী এখনো পুরো ফিট নন এবং তিনি ছিটকে গেছেন পুরো সিরিজ থেকেই। আর যিনি আছেন, সেই মোসাদ্দেকও নতুন বলে খুব একটা স্বচ্ছন্দ নন যে তাঁকে ওপরের দিকে নামানো যাবে।

কিন্তু আলোচনার ঝড় যখন বাংলাদেশ দলের ব্যাটিং ঘিরে, এ সময় দেশ থেকে জরুরি ভিত্তিতে উড়িয়ে নেওয়া হলো বাঁহাতি পেসার শরীফুল ইসলামকে। শরীফুলকে উড়িয়ে নেওয়ার কারণ, দীর্ঘদিন পর টেস্ট দলে ফেরা মোস্তাফিজুর রহমানের সেন্ট লুসিয়ায় খেলা নিয়ে অনিশ্চয়তা।

বাংলাদেশ দলের ভরসার নাম এখন পেস বোলিং আক্রমণ। এ বছর খেলা ৭ টি টেস্টে বাংলাদেশ দলের পেসাররা ৪৪ উইকেট নিয়েছেন, এই ৭ টেস্টে বাংলাদেশ দল ৫ জন পেসারকে খেলিয়েছে, এই ৭ টেস্টে স্পিনার খেলেছেন ৯ জন, যারা নিয়েছেন মোট ৫০ উইকেট।

বোলাররা গত কিছুদিন ভালোই করছেন। সাত টেস্টের পাঁচটিতেই পরাজয়ের কারণ হিসেবে তাই আরও বেশি করে সামনে আসছে ব্যাটিং। পরিস্থিতি যা, তাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টেও বোধ হয় খুব বেশি আশা করা ঠিক হবেনা।

সম্ভাব্য একাদশঃ তামিম ইকবাল, মাহমুদুল হাসান জয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, এনামুল হক, সাকিব আল হাসান(অধিনায়ক), লিটন দাস, নুরুল হাসান(উইকেট রক্ষক), মেহেদী হাসান, ইবাদত হোসেন, খলিল আহমেদ, শরীফুল ইসলাম।