এশিয়া কাপে সুযোগ পাবেন কিনা জানিয়ে দিলেন সাব্বির নিজেই

তিন বছরেরও বেশি সময় ধরে জাতীয় দলের বাইরে সাব্বির রহমান। দীর্ঘদিন ছিলেন না বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) রাডারেও।

অবশেষে কিছুদিন আগেই বাংলাদেশ টাইগার্সের ক্যাম্পে ডাক পেয়েছিলেন। সেখান থেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ‘এ’ দলের বিপক্ষে খেলার জন্য সুযোগ পেয়েছেন সাব্বির।

তিনি সর্বশেষ ২০১৯ সালে চট্টগ্রামে আফগানিস্তানের বিপক্ষে শেষ টি-টোয়েন্টি খেলেছিলেন। এই হার্ড হিটার জানিয়েছেন সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে আবারও ফিরতে চান জাতীয় দলের রাডারে।

এজন্য কঠোর পরিশ্রম করছেন তিনি। সাব্বির যেকোনোভাবেই এই সুযোগ কাজে লাগাতে মুখিয়ে আছেন।এ প্রসঙ্গে সাব্বির বলেন, ‘দেখেন সবকিছু তো কিছুটা চ্যালেঞ্জিংই।

শেষ তিন বছর জাতীয় দলের বাইরে। কোনো জায়গাতেই ছিলাম না। গতবছর ডিপিএলে ভালো পারফরম্যান্স করেছি। ভালো খেলেছি বলেই আমাকে কল করেছে টাইগার্সে।

সেখান থেকে ‘এ’ দলে, এখন আমি ওয়ানডে দলে। আলহামদুলিল্লাহ। সব জায়গাতেই চ্যালেঞ্জ আছে। এখানে ভালো খেলে কামব্যাক করতে হবে।

এখানে যেন ভালো খেলতে পারি সেই চেষ্টা থাকবে। এটা আমার জন্য বড় সুযোগ।’চারদিকে গুঞ্জন চলছে এশিয়া কাপের স্কোয়াডেও ডাক পেতে পারেন সাব্বির।

অবশ্য এই ব্যাপারে এই ডানহাতি ব্যাটার নিজেই কিছু জানেন না। গণমাধ্যমে এই খবর জেনেছেন তিনি। অবশ্য আপাতত ‘এ’ দলের সিরিজেই মনোযোগ সাব্বিরের। সেখানে তিনটি ওয়ানডে খেলবেন সাব্বির। সেই সিরিজে ভালো করেই বিসিবির সুনজরে থাকতে চান তিনি।সাব্বিরের ভাষ্য, ‘আমি এই ব্যাপারে কিছু জানি না (এশিয়া কাপে খেলার ব্যাপারে)।

আপনাদের নিউজ দেখেই জানলাম। অফিসিয়াল কিছু আমার কাছে আসেনি। আপাতত আমার সামনে ‘এ’ দলের খেলা। এখানেই আমার ফোকাস থাকবে। তিনটা ওয়ানডে আছে সেখানে। আগামী যাচ্ছি।

মূল লক্ষ্য থাকবে সেখানে।’জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে তারুণ্য নির্ভর দল পাঠিয়েছিল বিসিবি। যে দলের অধিনায়ক করা হয়েছিল নুরুল হাসান সোহানকে। যদিও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তারা ২-১ ব্যবধানে হেরেছে। এ ছাড়া চলতি সিরিজে সোহান ও লিটন দাস চোটে পড়েছেন। চোটগ্রস্ত স্কোয়াডের কারণেই সাব্বির ও সৌম্য সরকারদের মতো ক্রিকেটারদের বিবেচনা করা হচ্ছে এশিয়া কাপের জন্য।