রহস্যজনক ভাবে বাংলাদেশ দল কে নিয়ে ভবিষ্যৎ বাণী বললেন জেমি সিডন্স

২০০৭ সালে বাংলাদেশের দলের দায়িত্ব নেই অস্ট্রেলিয়ান কোচ জেমি সিডন্স। সে সময় তরুণ ক্রিকেটার ছিলেন তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম।

জেমি সিডন্স দায়িত্ব দেওয়ার পর সিনিয়রদের সরিয়ে তরুণ একটি দল গঠন করেন তিনি।ফলে আস্তে আস্তে ফল পেতে থাকে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল।

তার আমলে বাংলাদেশ দল আহমরি পারফরম্যান্স না করলেও বেশ কয়েকজন ভালো ক্রিকেটার তুলে এনেছিলেন তিনি।

সেই সাথে যেকোনো দলের বিপক্ষে জিততে পারি এমন একটি পরিবেশ নিয়ে এসেছিলেন তিনি।তার হাতেই গড়া তামিম, সাকিব, মুশফিক এখন বাংলাদেশ দলের সেরা আইকন ক্রিকেটার।

এবার আবারো সেই জেমি সিডন্সের উপর দায়িত্ব দেয়া হয়েছে তরুণ ব্যাটসম্যান খুঁজে আনার জন্য।আর সেজন্য তিনি এক বছরের সময় চেয়ে নিয়েছেন সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের কাছ থেকে।

জেমি সিডন্সকে নিয়োগ দেওয়ার সময় বিসিবির সভাপতি জানিয়েছিলেন তিনি শুধু জাতীয় দল নয় বয়সভিত্তিক দলের হয়েও কাজ করবেন।

তবে জাতীয় দলের ব্যস্ত সুচি থাকার কারণে তিনি জাতীয় দলের বাইরে থাকা ক্রিকেটারদের সময় দিতে পারছেন না।এমনকি এশিয়া কাপের জন্য নিজের ছুটি বাতিল করে সাকিব-মিরাজদের নিয়ে মিরপুরে অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

তবে জেমি সিডন্সের হাতে ১৫ থেকে ২০ জন তরুণ ক্রিকেটারকে তুলে দিতে চাই বিসিবি। গতকাল সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে বিজেপির সভাপতি বলেন।

সিডন্সের সঙ্গে কথা আগে থেকেই ছিল যে শুধু জাতীয় দল নিয়ে কাজ করবে না, ডেভেলপমেন্টে কাজ করবে। ওরও ইচ্ছে এরকমই ছিল। কিন্তু এখানে আসার পর শুধু জাতীয় দলের সঙ্গেই ভ্রমণ করছে।

ডেভেলপমেন্টে কাজই করতে পারছে না।জাতীয় দলের ব্যস্ততার ফাঁকে সময়ই পাচ্ছে না। সামনে সে মূলত ডেভেলপমেন্টে কাজ করবে।বিভিন্ন বয়সী ১০-১৫-২০টি ছেলে যদি আমরা তাকে দিয়ে দেই, এইচপিতে এরকম ছেলে আছে, ‘এ’ দল, বাংলাদেশ টাইগার্সে আছে। ওদের নিয়ে কাজ করে সে তৈরি করে দেবে। সে এক বছর সময় চাচ্ছে। এরপর সে (ব্যাটিং) পজিশন ধরে ধরে আমাদের ব্যাটসম্যান দিতে পারবে।