র‍্যাবের ঘিরে রাখা সেই বাড়ি থেকে ৬জন আটক

র‍্যাবের ঘিরে রাখা রাজধানীর নারিন্দা এলাকা সেই বাড়িটিতে অভিযান চালিয়ে ছয়জনকে আটক করেছে র‍্যাপিড আ্যকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

মঙ্গলবার (২৩ আগস্ট) দিবাগত রাত পৌঁনে ১টায় র‍্যাব সদর দফতরের আইন ও গণমাধ্যম শাখা পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ তথ্য জানান।

এর আগে মঙ্গলবার সাড়ে ১০টা থেকে নারিন্দার ফকিরচান সর্দার কমিউনিটি সেন্টার সংলগ্ন একটি বাড়ি ঘিরে অভিযান শুরু করে র‌্যাব।

অভিযান শেষে রাত পৌঁনে ১টায় সংবাদ সম্মেলন করেন খন্দকার আল মঈন।খন্দকার আল মঈন বলেন, বাড়িটিতে বিপুল পরিমাণ মাদকদব্য আছে এমন খবরের ভিত্তিতে র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে বাড়িটিতে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

এ সময় সেখান থেকে ছয়জনকে আটক করা হয়।তিনি বলেন, সম্প্রতি কিছু অভিভাবক র‌্যাব-২ এর অফিসে আসেন এবং আমাদের জানান,

তাদের সন্তানরা কামরাঙ্গীর চরের একটি দোকান থেকে আয়ুর্বেদিক ওষুধের মতো কিছু একটা কিনে পান করছে যার পরবর্তীতে তারা মাদকসেবীদের মতো আচরণ করছে। এমন অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা কামরাঙ্গীর চরে কথিত ওই আয়ুর্বেদিকের দোকানে যাই এবং ক্রেতা সেজে কয়েক বোতল ওষুধ জোগাড় করি।

পরে সেটি পরীক্ষার জন্য ল্যাবরেটরিতে পাঠাই। পরীক্ষার পর রির্পোট আসে যে, সেটি আসলে মাদক মিশ্রিত পানীয়।‘পরবর্তীতে আমরা কামরাঙ্গীরচরের সেই দোকানে অভিযান চালাই এবং কয়েকজনকে আটক করি।

আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদের পর আমরা এই জায়গার খোঁজ জানতে পারি। পরে আমরা এই বাড়িটিতে অভিযান চালাই’, যোগ করেন খন্দকার আল মঈন।তিনি বলেন,

এখানে প্রায় সাড়ে তিন হাজার বোতল পেয়েছি যার মধ্যে এই মাদক মিশ্রিত পানি রয়েছে। এছাড়া ইয়াবার মিক্সার, গাঁজার মিক্সার আমরা পেয়েছি।

অভিযান পরিচালনা করে আমরা জানতে পারি এটা মূলত হেকিম মো. নাঈম নামে বাজারজাত করে আসছিল। যিনি নিজেকে বড় একজন হেকিম হিসেবে দাবি করে আসছিল। তাকে আমরা আটক করতে পারিনি। তবে শান্ত নামে তার ছেলে আমরা আটক করতে সক্ষম হয়েছি। শান্ত এই মাদক মিশ্রিত পানীয় তৈরির ফ্যাক্টরি দেখাশোনা করছিলেন। পাশাপাশি আমরা আরও ৫ জনকে আটক করেছি।