বিশাল সুখবর দিল বিসিবি, এক জন নয় সাকিবের দলে খেলবে দুই লেগ স্পিনার

বাংলাদেশ দলের সবথেকে বড় সমস্যা হলো ব্যাটিংরা লেগ স্পিনার খেলতে প্রায় দুর্বল। কারন বাংলাদেশ দলের ব্যাটসম্যানদের কখনই লেগ স্পিনার খেলানো হয়না।

বিশেষ করে ঘরোয়ালীগে লেগ স্পিনার খেলাতে চাননা কোচরা।আর জাতীয়দলেতো কোনো লেগস্পিনার নেই। এতে করে অনেক সমস্যায় পরে হয় বাংলাদেশ দলকে।

আসন্ন এশিয়াকাপে বাংলাদেশ আফগানিস্তান ও শ্রীলঙ্কার সাথে মুখোমুখি হবে। আর এই দলে রয়েছে ভয়ানক ল্লেগ স্পিনার।আর এর মোকাবেলা করার জন্য বাংলাদেশ দল এখন মরিয়া হয়ে উঠেছে।

আর অনুশীলনিও চালিয়া যাচ্ছে।তবু অনুশীলনের জন্য হলেও লেগ স্পিনার দরকার হয় সাকিব আল হাসানদের। আসন্ন এশিয়া কাপের গ্রুপ পর্বের দুই প্রতিপক্ষ যখন আফগানিস্তান ও শ্রীলঙ্কা, তখন রশিদ খান এবং ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গাদের সামলানোর প্রস্তুতির কথাও ভাবতে হচ্ছে।

সেই ভাবনা থেকেই স্কোয়াডের সদস্য না হয়েও গতকাল দুবাইতে উড়ে গেছেন রিশাদ হোসেন। এই তরুণ লেগ স্পিনারের ভূমিকা শুধুই নেট বোলারের।

ভিসা জটিলতায় এক দিন পরে দলের সঙ্গে যোগ দেওয়া তাসকিন আহমেদ ও এনামুল হক বিজয়দের সঙ্গী হয়েছেন তিনিও।বিসিবির ক্রিকেট অপারেশনস কমিটির প্রধান জালাল ইউনুস এ বিষয়ে বলছিলেন, ‘যাদের সঙ্গে আমাদের খেলতে হবে, তাদের দলে ভালো লেগ স্পিনার আছে।

কাজেই নেটে তাদের খেলার প্রস্তুতি তো নিতে হবে। কিন্তু দুবাইতে এ রকম নেট বোলার পাওয়া মুশকিল বলেই রিশাদকে পাঠানো হয়েছে।তবে রিশাদ একা নন,

নেটে বোলিংয়ের জন্য দুই ভিনদেশি লেগ স্পিনারও দুবাইতে সঙ্গী হতে চলেছেন বাংলাদেশ দলের। এঁদের একজন উড়ে যাচ্ছেন ভারতের চেন্নাই থেকে। অন্যজন দুবাইতেই থাকেন।

নামধাম না জানলেও তাঁদের অন্তর্ভুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে জালাল বলেছেন, ‘হ্যাঁ, চেন্নাই থেকে একজন লেগ স্পিনার যাচ্ছে দুবাইতে।আমিরাতভিত্তিক একজন লেগিও থাকবে। ’

চেন্নাই থেকে লেগি নিয়ে যাওয়ার কারণ ব্যাখ্যায় তিনি বলেন, ‘আমরা তো অনেক লেগিকেই চেষ্টা করে দেখেছি। দুর্ভাগ্য যে ঘরোয়া ক্রিকেটে কোচরা এদের তেমন সুযোগ দেয় না।ম্যাচ না খেলে খেলে ওরা সেভাবে তৈরিও হতে পারে না। রিশাদ ছাড়া তেমন কেউ এই মুহূর্তে নেইও।

তাই আমাদের টেকনিক্যাল কনসালট্যান্ট শ্রীধরন শ্রীরামের পছন্দের একজনকে চেন্নাই থেকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।মাঝেমধ্যেই ব্যাপক সম্ভাবনার প্রতিশ্রুতি দিয়েও কেউ কেউ হারিয়ে গেছেন বলেই এমনকি নেট বোলারের জন্যও এখন দেশের বাইরে হাত বাড়াতে হচ্ছে বাংলাদেশকে। জুবায়ের হোসেনের খবরই নেই কোনো।

২০১৯ সালের নভেম্বরে দিল্লিতে ভারতের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টি জয়ে ২২ রানে ২ উইকেট নিয়ে অবদান রাখা আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের খবরও সুবিধার নয় বলে জানালেন জালাল, ওর ব্যাপারে নির্বাচকদের কাছে জানতে চেয়েছিলাম। ওনারা জানালেন, বিপ্লব নাকি বোলিংয়ের চেয়ে এখন ব্যাটিং ভালো করছে। বোলিং নাকি একদমই ভালো হচ্ছে না।