মোসাদ্দেক নাইম আফিফের ব্যাটিং তাণ্ডবে ৫০ ওভার শেষে রানপাহাড় গড়ল আবাহনী

দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের আসর ডিপিএলে আবারও ব্যাট হাতে ঝড় তুলেছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও আফিফ হোসেন ধ্রুব।

দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে দেশে ফেরত এসেই আবাহনীর হয়ে রানের দেখা পেলেন আফিফ। সেই সাথে অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতও তাণ্ডব চালিয়েছেন আজ।

চলমান ডিপিএলে আবাহনী লিমিটেড মুখোমুখি হয়েছে শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবের। বুধবার ইউল্যাব মাঠে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামা আবাহনীর হয়ে নাইম শেখ ও জাকের আলি মিলে স্কোরবোর্ডে জমা করে ৭৩ রান।

এই জুটি বিচ্ছিন্ন হয় জাকের আলি সাজঘরে ফিরে গেলে। দেখেশুনে ব্যাটিং করা নাইম শেখ অবশ্য অর্ধশত রান নিজের নামের পাশে জড়ো করতে খেলেন ৭২টি বল।

৮১ বলে ৬০ রানের ধীরগতির ইনিংস খেলে মোহর শেখের শিকারে পরিণত হয়ে অবশ্য মাঠ ছাড়তে হয়েছিল নাইম শেখকে।দলীয় ১৬১ রানের মাথায় ৩ উইকেট হারানো আবাহনীর হয়ে ব্যাট হাতে ক্রিজে আসেন অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত।

মাঠে নেমেই আগ্রাসী মেজাজে শাইনপুকুরের বোলারদের উপর তাণ্ডব চালাতে থাকেন মোসাদ্দেক।তৌহিদ হৃদয়ের সাথে মিলে মোসাদ্দেক হোসেন গড়েন ১১ রানের দ্রুতগতির জুটি।

এই জুটি বিচ্ছিন্ন হয় ৩২ বলে ৪৫ রানের ইনিংস খেলে তৌহিদ হৃদয় সাজঘরের পথ ধরলে। তবে ব্যাট হাতে এদিন অর্ধশত রান তুলতে মোসাদ্দেক খেলেন ৩৮টি বল।অর্ধশতক হাঁকিয়ে আরও আগ্রাসী ভূমিকায় অবতীর্ণ হন আবাহনীর অধিনায়ক মোসাদ্দেক। পরবর্তী ২০ বলে ৩৮ রান তোলা মোসাদ্দেক অপরাজিত ছিলেন শেষ পর্যন্ত।

তার সাথে জুটি গড়ে দলকে বড় স্কোরের দিকে এগিয়ে যান আরেক ব্যাটার আফিফ হোসেন ধ্রুবও।দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে এসেই আবাহনীর জার্সিতে মাঠে নামা আফিফ এদিন খেলেছেন মাত্র ১১টি বল।

মোসাদ্দেকের ৬৫ বলে অপরাজিত ৮৮ রানের সাথে আফিফ হোসেন ধ্রুবর ১১ বলে ৩৫ রানের ক্যামিও ইনিংসে ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে আবাহনী গড়ে ৩৩৩ রানের পাহাড়।