হংকংকে হারিয়ে এশিয়া কাপের সুপার ফোরে পা রেখে দুই ক্রিকেটারকে প্রশংসায় ভাসালেন অধিনায়ক বাবর

এশিয়া কাপের সুপার ফোরে যাওয়ার লড়াইয়ে হংকংকে উড়িয়ে দিয়েছে পাকিস্তান। যে চ্যালেঞ্জ টপকানো তো দূরের কথা ধারেকাছেও যেতে পারেনি বাছাইপর্ব পেরিয়ে আসা হংকং।

ব্যাটে-বলের দাপটে হংকংকে উড়িয়ে শেষ চারে জায়গা করে নিয়েছে বাবর আজমের দল।আজ শুক্রবার গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে হংকংকে ১৫৫ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে পাকিস্তান।

এর আগে তিনটি দল সুপার ফোর নিশ্চিত করেছে। সবার আগে শেষ চারের টিকেট নিশ্চিত করেছে আফগানিস্তান। এর পর একে একে জায়গা পাকা করেছে ভারত ও শ্রীলঙ্কা।

এবার হংকংকে হারিয়ে শেষ দল হিসেবে সুপার ফোরের টিকেট পেল পাকিস্তান।শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচটিতে টসে হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে স্কোরবোর্ডে ১৯৩ রান তোলে পাকিস্তান।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৮ রান করেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। ৫৭ বলে তাঁর ইনিংসে ছিল ৬টি বাউন্ডারি ও একটি ছক্কা।এদিন আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় পাকিস্তান।

ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই হারায় অধিনায়ক বাবর আজমকে। নিজের বলে নিজেই দারুণ ক্যাচ দিয়ে পাকিস্তান অধিনায়ককে বিদায় করেন এহসান খান।

৮ বলে ৯ রান করে ফেরেন বাবর।শুরুর ধাক্কা সামলে জুটি গড়েন মোহাম্মদ রিজওয়ান ও ফখর জামান। জুটি গড়লেও শুরুতে রান নিতে ভোগেন দুজন।

তবে চাপ সামলে দুজন এগিয়ে নেন পাকিস্তানকে। এর মধ্যে ৪২ বলে ব্যক্তিগত হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন রিজওয়ান। এই জুটিতে ভর করেই ১৯৩ রানের পুঁজি গড়ে নেয় পাকিস্তান। রিজওয়ান ৭৮ রান করেন। তাঁর সঙ্গে ফখর জামান খেলেন ৪১ বলে ৫৩ রানের ইনিংস। শেষ দিকে নেমে ১৫ বলে ৩৫ রান করেন খুশদিল শাহ।

১৯৪ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে লড়াইটাও জমিয়ে তুলতে পারেনি হংকং রান পাকিস্তানের বোলারদের সামনে মুখ থুবড়ে পড়ে পড়ে তাদের ব্যাটিং লাইনআপ। নেওয়াজ, নাসিম শাহ ও শাদাব খানের বোলিংয়ের সামনে ৫০ রানও পার করতে পারেনি হংকং।

রান তাড়ায় ১০.৪ ওভারে মাত্র ৩৮ রানেই থেমে যায় হংকং।পাকিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট নেন শাদাব খান। তিন উইকেট নেন মোহাম্মদ নেওয়াজ।

দুটি উইকেট নেন নাসিম শাহ। ম্যাচ শেষে অধিনায়ক বাবর আজম যোগ করেন, ” এটা আমাদের জন্য খুবই ভালো জয়, শুরুর দিকে আমরা ব্যাট হাতে ভালো শর্ট নিতে পারিনি।আমাদের পরিকল্পনা ছিল শীর্ষে থাকা ব্যাটাররা শেষ পর্যন্ত খেলতে পারা।নাসিম এবং দাহানি সত্যিই ভাল পারফর্ম করছে।”