এর আগে তার স্ত্রী বলেছিলেন, ‘আল-আমিন প্রায়ই মেয়ে নিয়ে বাসায় আসত’

যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতন ও মারধরের অভিযোগে জাতীয় দলের পেসার আল আমিনের বিরুদ্ধে করা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ২১ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।

শুক্রবার (২ সেপ্টেম্বর) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসান মামলার এজহার গ্রহণ করে দিন ধার্য করেন বলে জানা গেছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) আল আমিনের স্ত্রী ইসরাত জাহানের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে শুক্রবার (২ সেপ্টেম্বর) মামলাটি নথিভুক্ত হয় বলে মিরপুর মডেল থানা সূত্রে নিশ্চিত হয়েছে সময় সংবাদ।

জানা গেছে, মামলার তদন্তের স্বার্থে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আল আমিন হোসেনকে থানায় ডাকা হতে পারে অথবা তাকে গ্রেফতার করতে পারে পুলিশ।

এর আগে সময় সংবাদকে মিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাজিরুর রহমান বলেছিলেন, ‘ক্রিকেটার আল আমিন হোসেনের বিরুদ্ধে তার স্ত্রী আমাদের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন।

আমরা বিষয়টি তদন্ত করছি।’অভিযোগপত্রে ইসরাত জাহান লিখেছেন, গত ২৫ আগস্ট আনুমানিক রাত ১০টার দিকে বাসায় এসে যৌতুকের ২০ লাখ টাকা এনেছে কি না জানতে চায় সে (আল আমিন)। এত টাকা দেয়া তার পরিবারের পক্ষে সম্ভব নয় বলে জানালে সে তাকে মারধর করে। পরে ৯৯৯-এ কল দিলে পুলিশ এসে তাকে ( ইসরাত জাহান) উদ্ধার করে রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ভর্তি করে। এর আগেও বেশ কয়েকবার তাকে শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতন করেছে।

২৫ আগস্টের ঘটনার বিষয়ে উদ্ধারকারী পুলিশ সদস্য সোহেল রানার কাছে জানতে চাওয়া হলে সময় সংবাদের কাছে তিনি স্বীকার করেন, ওইদিন ৯৯৯-এ কল পেয়ে তিনি গিয়ে উদ্ধার করেন আল আমিন হোসেনের স্ত্রীকে। তবে এর বেশিকিছু তিনি জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেন।এদিকে, থানায় অভিযোগ জানানোর পর স্ত্রী ইসরাত জাহান বলেন,

‘আল-আমিন একজন মেয়েকে নিয়ে প্রায়ই বাসায় আসত। ও দাবি করেছে, ও ওই মেয়েকে বিয়ে করেছে। কিন্তু আমি কোনো প্রমাণ তার বিরুদ্ধে পাইনি। ও যৌতুক দাবি করে আমাকে মারধরও করতো।’ তিনি বলেন, ‘আমি আমার ছেলেদের কথা চিন্তা করে তার সঙ্গে সংসার করতে চাই।

কিন্তু তাকে সব ছেড়ে আমার সঙ্গে থাকতে হবে।’তবে প্রতিক্রিয়ায় আল আমিন বলেন, ‘এসব মিথ্যা কথা। আমার বাবা-মায়ের সঙ্গে আমরা একসঙ্গে থাকি। এমন কিছুই না। শারীরিক নির্যাতনের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা স্বামী-স্ত্রী। টুকটাক ঝামেলা তো থাকতেই পারে। এমন বড় কোনো বিষয় না এটা।

এখন আমার বউ-বাচ্চা আমার সঙ্গেই আছে। সে হয়তো অভিমান বা রাগ করে এমন কিছু বলছে। আমাদের মধ্যে কোনো সমস্যা নেই।’উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন জাতীয় দলের বাইরে থাকা ক্রিকেটার আল আমিন ও ইসরাত জাহানের দাম্পত্য জীবন ১২ বছরেরও বেশি সময়ের।

তাদের দুই পুত্র সন্তান রয়েছে। বড় ছেলের বয়স ৬ বছর এবং ছোট ছেলের বয়স সাড়ে চার বছর।এর আগে নারীঘটিত কারণে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে শাস্তির মুখে পড়েছিলেন আল আমিন। এছাড়া নানা সময়ে মাঠে অশোভন আচরণের কারণেও বিতর্কের জন্ম দিয়েছিলেন তিনি।