ব্রেকিং নিউজঃ মাহমুদউল্লাহ বাদ সৌম্যকে রেখে ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য বাংলাদেশের ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা

বিশেষ কোনো পরিস্থিতি ছাড়া ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য চূড়ান্ত স্কোয়াড ঘোষণা করতে হবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে। ‌

যদিও এই দল নিয়েই নিউজিল্যান্ডের অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে খেলবে বাংলাদেশ। আগামী রবিবার থেকে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ দলের বিশেষ প্রস্তুতি ক্যাম্প।

সেখানে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের পাশাপাশি ডাকা হবে জাতীয় দলের বাইরে থাকা ক্রিকেটারদের। সব মিলিয়ে ওই ক্যাম্পে ভালো কিছু করতে পারলে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দলের সুযোগও পেয়ে যেতে পারে যে কেউ।

তবে এশিয়া কাপ ব্যর্থতার পর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দল এক প্রকার চূড়ান্ত।টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে কোন ইনজুরি সমস্যা নেই টাইগার শিবিরের।

যারা ছিল তারা সবাই বর্তমান সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তাই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে থাকা একপ্রকার নিশ্চিত অধিনায়ক সাকিব আল হাসান এবং সহ অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহানের।

এছাড়াও নিশ্চিত আফিফ হোসেন, লিটন দাস,মোস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ এবং মোসাদ্দেক হোসেনের। কোন অঘটন না হলে এই সাতজন টি-টোয়েন্টি দলে একপ্রকার নিশ্চিত।

তবে লিটন দাসের সাথে ওপেনিং সঙ্গী হবেন কোন দুইজন সেটার জন্য অপেক্ষা করতে হবে দল ঘোষণা পর্যন্ত। এশিয়া কাপের শেষ ম্যাচে উড়ন্ত সূচনা এনে দেওয়ার জন্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও ওপেনিংয়ে বিবেচনায় রয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

তবে এশিয়া কাপে খেলা এনামুল হক বিজয়, মোঃ নাঈম এবং পারভেজ হোসেন ইমনের দলে না থাকা এক প্রকার নিশ্চিত। গুঞ্জন উঠেছে ওপেনিংয়ে বিকল্প হিসাবে থাকতে পারেন সৌম্য সরকার। অস্ট্রেলিয়ার বাউন্সি উইকেট এবং অভিজ্ঞতার বিচারে সাব্বির রহমানের মত তিনিও দলে সুযোগ পেয়ে যেতে পারেন।

তবে কপাল পুড়তে পারে সাবেক অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের। দলে ইয়াসির আলী ফেরায় সাব্বির রহমান অথবা মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের মধ্য থেকে যেকোনো একজনকে দেখা যেতে পারে চূড়ান্ত দলে। দীর্ঘদিন ধরেই ব্যাটিংয়ে রান পাচ্ছেন না মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।তবে অভিজ্ঞতার বিচারে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ এগিয়ে রয়েছেন।

দুই স্পিনার শেখ মেহেদী হাসান এবং নাসুম আহমেদের দলে থাকা এক প্রকার নিশ্চিত। তবে ফাস্ট বোলিংয়ে এবাদত হোসেন এবং মোঃ সাইফুদ্দিনের পরিবর্তে দেখা যেতে পারে হাসান মাহমুদ এবং শরিফুল ইসলামকে। দুজনই ইনজুরি থেকে এখন সুস্থ হয়ে উঠেছে। তবে চূড়ান্ত দলের পাশাপাশি রিজার্ভ ক্রিকেটার হিসেবে থাকতে পারেন আরো দুই তিন জন ক্রিকেটার।

তাদের মধ্যে ফাস্ট বোলার মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী থাকা এক প্রকার নিশ্চিত। এছাড়াও এই জায়গায় দেখা যেতে পারে এনামুল হক বিজয়কে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য বাংলাদেশের সম্ভাব্য স্কোয়াড : সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), নুরুল হাসান সোহান (সহ অধিনায়ক), লিটন দাস, মেহেদী হাসান মিরাজ, সৌম্য সরকার, আফিফ হোসেন, ইয়াসির আলী রাব্বি, সাব্বির রহমান/মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, শেখ মেহেদী হাসান, নাসুম আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, হাসান মাহমুদ, শরিফুল ইসলাম।