১০২০ দিন পর অভিশাপ মুক্ত কোহলি, ঝড়ো সেঞ্চুরিতে আফগানিস্তানকে পাহাড় সমান রানের টার্গেট দিল ভারত

ফাইনালের দৌড় থেকে ছিটকে গিয়েছে উভয় দলই। তবে ভারত ও আফগানিস্তানের কাছে চলতি এশিয়া কাপের সুপার ফোরের ম্যাচটি গুরুত্বপূর্ণ অন্য কারণে।

আসলে টি-২০ বিশ্বকাপের আগে যথাযথ কম্বিনেশন নির্ধারণের ক্ষেত্রে ক্রিকেটারদের যাচাই করার বিষয়টি মহাগুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এই ম্যাচটিতে উভয় দল নিতান্ত চাপমুক্ত হয়ে মাঠে নামতে পারবে বলে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা নিরীক্ষার সুযোগ থাকছে রোহিত শর্মা ও মহম্মদ নবিদের সামনে।

বিরাট কোহলিকে সঙ্গে নিয়ে ওপেন করতে নামেন লোকেশ রাহুল। বোলিং শুরু করেন ফজলহক ফারুকি। প্রথম বলে ২ রান নিয়ে খাতা খোলেন রাহুল।

প্রথম ওভারে ৬ রান ওঠে। কোনও উইকেট হারায়নি ভারত।দ্বিতীয় ওভারে বল করতে আসেন মুজিব উর রহমান। তাঁর ওভারে ২টি সিঙ্গল নেন রাহুল।

১টি সিঙ্গল নেন কোহলি। ওভারে মোট ৩ রান ওঠে। ২ ওভার শেষে ভারতের স্কোর বিনা উইকেটে ৯ রান। রাহুল ৬ রানে ব্যাট করছেন।তৃতীয় ওভারে ফজলহক ফারুকির দ্বিতীয় বলে চার মারেন লোকেশ রাহুল।

চতুর্থ বলে চার মারেন কোহলি। ওভারে মোট ১২ রান ওঠে। ৩ ওভার শেষে টিম ইন্ডিয়ার স্কোর বিনা উইকেটে ২১ রান। কোহলি ৭ ও রাহুল ১৩ রানে ব্যাট করছেন।

চতুর্থ ওভারে মুজিব ৭ রান খরচ করেন। শেষ বলে বাউন্ডারি মারেন রাহুল। ৪ ওভারে ভারতের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ২৮ রান। রাহুল ১৮ রানে ব্যাট করছেন।

পঞ্চম ওভারে ফরিদের বলে ২টি চার মারেন লোকেশ রাহুল। ওভারে মোট ৯ রান ওঠে। ৫ ওভার শেষে ভারতের স্কোর বিনা উইকেটে ৩৭ রান। রাহুল ২৬ ও কোহলি ১০ রানে ব্যাট করছেন।

পাওয়ার প্লেতেই দলগত ৫০ রানের গণ্ডি টপকে গেল ভারত। ষষ্ঠ ওভারে মুজিব উর রহমানের বলে ২টি চার ও ১টি ছক্কা মারেন কোহলি। ওভারে মোট ১৫ রান ওঠে।

৬ ওভার শেষে ভারতের স্কোর বিনা উইকেটে ৫২ রান।কোহলি ২৮ বলে ৪৪ রান করেছেন। তিনি ৪টি চার ও ১টি ছক্কা মেরেছেন। রাহুল ৪টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৩২ বলে ৪২ রান করেছেন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১০ ওভারে ৮৭ রান কোন উইকেওট না হারয়ে। দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ৩২ বলে হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন কোহলি। রাহুল আউট হন ৪১ বলে ৬২ রান করে।এরপর ৫৩ বলে সেঞ্চুরি তুলে নেন কোহলি।১০২০ দিন পর ইবাদতের সেলুটের অভিশাপ থেকে মুক্তি পেল কোহলি শেষ পর্যন্ত তিনি ৬১ বলে ১২২ রান করে অপরাজিত থাকেন।সর্বশেষ স্কোর: ভারত- ২১২/২ (২০)