শ্রীরাম নিজেই ফাঁস করলেন শান্তকে দলে রাখার আসল গুরু মন্ত্র

জোর গুঞ্জন ছিল, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে ডাক পেয়ে যাবেন বাঁহাতি ড্যাশিং ওপেনার সৌম্য সরকার। কিন্তু তাকে রাখা হয়েছে রিজার্ভ হিসেবে।

তবে সবাইকে অবাক করে দিয়ে মূল দলে সুযোগ পেয়েছেন আরেক বাঁহাতি টপঅর্ডার নাজমুল হোসেন শান্ত।ব্যাট হাতে অফফর্মের কারণেই জিম্বাবুয়ে সফর ও এশিয়া কাপের দল থেকে বাদ পড়েছিলেন শান্ত।

এবার কী কারণে বিশ্বকাপ দলে ফেরানো হলো তাকে?- স্বাভাবিকভাবেই এসেছে এই প্রশ্ন।যেখানে ঘরোয়া ক্রিকেটে শান্তর অতীত রেকর্ড ও ইমপ্যাক্টের কথা বলা হয়েছে টিম ম্যানেজম্যান্টের পক্ষ থেকে।

দল ঘোষণার সময় জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু জানিয়েছেন, ঘরোয়া ক্রিকেটে শান্তর রেকর্ড বিবেচনা করেই তাকে বিশ্বকাপের দলে নেওয়া হয়েছে।

বিপিএলের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ‘শান্তর বিপিএলের রেকর্ডটা দেখেন। আমাদের ঘরোয়া যে কয়জন ক্রিকেটার আছে, তাদের মধ্যে কিন্তু ওর রেকর্ডটা খারাপ নয়।

বিপিএলে যে কয়টা সেঞ্চুরি আছে লোকাল প্লেয়ারদের, বেশি কিন্তু শান্তরই করা। তিনি আরও যোগ করেন, ‘সেই হিসেবে যদি চিন্তাভাবনা করেন,

তাহলে কিন্তু শান্তর ঘরোয়া রেকর্ড কিন্তু খুব একটা খারাপ নয়।আন্তর্জাতিকে তো এই ফরম্যাটে আমরা সবাই স্ট্রাগল করছি।টিম ম্যানেজম্যান্টের একটা মতামত আছে,

আমাদের (নির্বাচক) একটা মতামত। সবার সম্মতিক্রমেই ওকে নেওয়া। পরে বিশ্বকাপ দল নিয়ে সংবাদমাধ্যমের সামনে কথা বলতে আসেন টেকনিক্যাল কনসালটেন্ট শ্রীধরন শ্রীরাম।

তিনি শান্তকে দলে নেওয়ার ব্যাখ্যা দেওয়ার আগে বাংলাদেশ দলের নতুন লক্ষ্যের কথা জানান। তার বর্তমান চাহিদা হলো দলের প্রয়োজনের সময় প্রভাব রাখার মতো কিছু করা।

সে বিষয়ে শ্রীরাম বলেন, ‘আমি যেটা খুঁজছি, সেটা হলো ইমপ্যাক্ট। আমি এখন পারফরম্যান্স খুঁজছি না। বাংলাদেশ যেমন দল, তাতে ৭-৮ জন ইমপ্যাক্ট ফেলতে পারলেও জিতে যাবে।

তো ১৭-১৮ বলে ২৫-৩০ রান করতে পারলে সেটিই আমার জন্য ইমপ্যাক্ট। তিনি আরও বলেন, ‘আমি একটা উদাহরণ দিতে চাই।(এশিয়া কাপে) রিয়াদ আউট হওয়ার পর মোসাদ্দেক যেভাবে হাসারাঙ্গার ওভারে চড়াও হয়ে ১২ রান নিয়ে নিলো, সেটি হলো ইমপ্যাক্ট।

তাই দল হিসেবে আমাদের এমন খেলোয়াড় খুঁজতে হবে যারা ম্যাচে ইমপ্যাক্ট রাখবে। এখন পারফরম্যান্সের গুরুত্ব কম জানিয়ে শ্রীরাম বলেন, ‘এখন পারফরম্যান্স খুঁজে লাভ নেই।

আমার মতে টি-টোয়েন্টিতে পারফরম্যান্স ওভাররেটেড বিষয়। নিয়মিত পারফর্ম করেও সবসময় ম্যাচ জেতা যায় না। কিন্তু যত বেশি খেলোয়াড় ম্যাচে ইমপ্যাক্ট রাখবে, ম্যাচ জেতার সুযোগ বেড়ে যাবে।’

শান্তকে ঠিক তেমন ইমপ্যাক্ট খেলোয়াড় মনে হওয়ার কারণেই মূলত বিশ্বকাপে নেওয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেছেন, ‘আমি মনে করি সে (শান্ত) অনেক ভালো খেলোয়াড়।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য প্রয়োজনীয় টেম্পারমেন্ট ওর আছে।আমি অল্পবিস্তর যা দেখেছি, ব্যাটিং করতে দেখেছি; আমার মনে হয়েছে ওর সেই টেম্পারমেন্ট আছে।

যে ইমপ্যাক্ট খুঁজছিলেন শ্রীরাম, সেটি শান্তর মধ্যে রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন বাউন্সি উইকেটে খেলার মতো সামর্থ্য ওর রয়েছে যে হরিজন্টাল শট খেলতে পারে। তাই আমার মনে হয়, আমরা যে ইমপ্যাক্ট খুঁজছি সেটি ওর মধ্যে রয়েছে।