অবসর নেওয়া মাশরাফিকে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে চান আশরাফুল

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি থেকে মাশরাফি বিন মর্তুজা অবসর নিয়েছেন সেই ২০১৭ সালে। পেরিয়ে গেছে প্রায় ছয় বছর।

এই সময়ে দলের আদল বদলে গেছে অনেকটাই।আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টির ধরণেও এসেছে বদল।

তবে এবারের বিপিএলের পারফরম্যান্স দিয়ে দীর্ঘদিন পর অবসরে থাকা মাশরাফিকে টি-টোয়েন্টিতে ফেরানোর কথা বললেন মোহাম্মদ আশরাফুল।

নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজি সিলেট স্টাইকার্সের নেতৃত্ব দেওয়া মাশরাফি বিপিএলে এখন পর্যন্ত বেশ ভালোই বল করছেন। ৬ ম্যাচ খেলে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৯ উইকেট নিয়েছেন তিনি।

১৫ গড়ে ওভারপ্রতি রান দিয়েছেন স্রেফ ৬.৭৫ করে। চল্লিশ ছুঁইছুঁই মাশরাফি মূলত বল গ্রিপ করা উইকেটের ভাষা পড়ে কাটারে রেখেছেন ভরসা।

অনুকূল কন্ডিশন পেয়ে শুরুর দিকের উইকেটের আড়ষ্টতা কাজে লাগাচ্ছেন তিনি।রোববার মিরপুর সিটি ক্লাব মাঠে এক আয়োজনে গিয়ে সাবেক অধিনায়ক আশরাফুল কথা বলেন চলমান বিপিএল নিয়ে।

মাশরাফি প্রসঙ্গে এলে দুটি দিক উল্লেখ করে ব্যাখ্যা দিয়েছেন তিনি, ‘যারা আসলে মেধাবী তাদের ক্ষেত্রে বয়সটা শুধু সংখ্যা। যেহেতু সে প্রকৃত প্রতিভা ছিল,

সে ৫০ বছরে গিয়েও তার পারফরম্যান্সটা করতে পারবে, আমি বিশ্বাস করি।এটা এক দিক থেকে ইতিবাচক, আরেকদিক থেকে মনে হয় আমরা উন্নতি করছি কিনা।

কারণ সে পাওয়ার প্লেতে ৩ ওভার বল করছে ১১০ (কিলোমিটার) পেসে, চমৎকার লাইন লেংথে বল করছে। কিন্তু আমাদের যারা টপ প্লেয়ার যেমন সৌম্য সরকার ওর বলে আউট হচ্ছে,

পাওয়ার হিট করতে পারছে না। ওই জায়গায় চিন্তা হচ্ছে, আসলে আমাদের খেলাটা কি উন্নতি হচ্ছে কীনা।’বিপিএল শেষ হওয়ার পরই তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও তিন টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসবে ইংল্যান্ড।

বিপিএলের পারফরম্যান্স দিয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে মাশরাফিকে নেওয়া উচিত বলে মনে করেন আশরাফুল,

‘পারফরম্যান্সে তো আসলে জাতীয় দলে আসা উচিত মাশরাফির।কারণ আপনি যদি সব মিলিয়ে দেখেন যারা তরুণ পেসার আছে,

তাদের থেকে ইকোনমি ও উইকেটে মাশরাফি টপে আছে। এখন সে খেলবে কী না, এটা গুরুত্বপূর্ণ। মাশরাফি জাতীয় দলে খেলবে কি না এটা গুরুত্বপূর্ণ।

তবে পারফরম্যান্স অবশ্য টি-২০ যেটা ইংল্যান্ডের সঙ্গে খেলা, সেখানে সহজেই আসে।’মাশরাফির ফেরা নিয়ে কথা বললেও নিজের জাতীয় দলে ফেরার আর কোন আশা দেখেন না ৩৮ পেরুনো সাবেক অধিনায়ক,

‘এখন আর আশা (জাতীয় দলে ফেরা) করি না। আমি তো যথেষ্ট ক্রিকেট খেলেছি। কিন্তু যারা তরুণ তারা যে বসে আছে, আমি তাদেরকে নিয়ে চিন্তিত।

আমি এখন শুধু খেলতে চাই (ঘরোয়া লিগে)। আর হয়ত একটা দুইটা সিজন খেলব তারপর তো… যথেষ্ট।’চলমান বিপিএলে ড্রাফটে থাকলেও আশরাফুলকে নেয়নি কোন দল।

জাতীয় ক্রিকেট লিগ, বিসিএলের মতো প্রথম শ্রেণীর আসরে অবশ্য তিনি এখনো খেলছেন। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ৫০ ওভারের ক্রিকেটও খেলতে দেখা যায় এক সময় ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে নিষিদ্ধ থাকা আশরাফুলকে।