বিশ্বকাপে টাইগারদের ট্রাম্পকার্ড বিজয়, মুনিম

২০২১ বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল খেলার স্বপ্ন নিয়ে দুবাই গিয়েছিল বাংলাদেশ। বিশ্বকাপ শুরু হতেই সেই স্বপ্ন যেন ভেঙে চুরমার হয়ে গিয়েছিল।

বাছাইপর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ড এর বিপক্ষে হার। এ হারের পর মাঠে সেই আগের বাংলাদেশকে আর দেখা যায়নি। কোনভাবে বাছাইপর্ব উত্তরালেও মূলপর্বে হারতে হয়েছে সবগুলো ম্যাচ।

সব মিলিয়ে দেশের ইতিহাসেরই অন্যতম বাজে বিশ্বকাপ ছিল ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। এই বিশ্বকাপে টাইগারদের ব্যর্থতার অন্যতম কারণ ছিল পাওয়ার প্লেতে রান তুলতে না পারা।

অধিকাংশ ম্যাচেই পাওয়ার প্লের মধ্যেই তিনটি উইকেট হারিয়ে ফেলত টাইগাররা।কোন ম্যাচে উইকেট বাঁচিয়ে রাখতে সক্ষম হলেও রান তুলতে পারেনি একটি ম্যাচেও।

বর্তমানে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে পাওয়ার প্লে অথবা ডেথ ওভারের পূর্ণ সুবিধা আদায় না করলে ম্যাচ জেতা সম্ভব নয়। অর্থাৎ মাঝারি মানের ক্রিকেট খেলে বাংলাদেশ ভালো ক্রিকেট খেলতে পারবে তবে ম্যাচ জিততে পারবে না।

সামনে আরেকটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। এই বিশ্বকাপে ও একজন মারকুটে ফিনিশার ছাড়াই যেতে হচ্ছে বাংলাদেশকে। তবে পাওয়ার প্লেতে রান করতে পারবে এমন কিছু বিকল্প রয়েছে নির্বাচকদের হাতে।

বিপিএলে ১৫০ স্ট্রাইক রেট এর উপর ব্যাটিং করা মুনিম শাহরিয়ার এর উপর আস্থা রাখছে নির্বাচকেরা।পাশাপাশি প্রিমিয়ার লিগে এগারোশোর বেশি রান করা এনামুল হক ও চলে এসেছেন রাডারে।

বলা চলে অবিশ্বাস্য পারফর্ম করে নিজেকে দলে নিতে নির্বাচকদের একপ্রকার বাধ্য করছেন এনামুল। হয়তো খুব শীঘ্রই দলেও চলে আসবেন এই ব্যাটসম্যান। তবে এনামুল হককে একটু ভিন্নভাবে ব্যবহার করার কথা চিন্তা করতেই পারে বাংলাদেশ। ওপেনিংয়ে ঝড় তুলতে বেশ পারদর্শী এনামুল।এনামুলকে লাইসেন্স অফ কিল অর্থাৎ পাওয়ার প্লেতে আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করার লাইসেন্স দিলেই, সেটি দারুন কার্যকরী হতে পারে বাংলাদেশের জন্য।

বিশ্বকাপে ভালো কিছু করতে হলে একটু ভিন্নভাবে চিন্তা করতেই হবে টিম ম্যানেজমেন্টকে। ফলে বিজয়কে দলে নেওয়া হলে তার সর্বোচ্চ ব্যবহার করাটা ম্যানেজমেন্ট এর উপর।বিজয়কে যদি সর্বোচ্চ স্বাধীনতা দেওয়া হয় তাহলে এই বিজয় হতে পারে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের ট্রাম্পকার্ড।

ওপেনিংয়ে বিজয় যদি টাইগারদের একটি উড়ন্ত সূচনা এনে দিতে পারে তাহলে পুরো ব্যাটিংয়ের চিত্রটা ভিন্ন দেখাবে। পরবর্তীতে শেষ ওভারগুলোতে মোটামুটি রান করলেও টাইগাররা একটি লড়াই করার মতো স্কোরে ঠিকই যেতে পারবে। নিঃসন্দেহে এনামুল হক এখন বেশ ভালো ফর্মে রয়েছে। তাকে নির্বাচকরা এবং টিম ম্যানেজমেন্ট কিভাবে ব্যবহার করেন এটাই এখন দেখার পালা।